Sunday, March 10, 2013

আমরা ব্লগার নাস্তিক নই???



গতকাল আম্মুর জন্য ওষুধ কিনতে গেলাম ঔষুদের ডিস্পেন্সারিতে।। সেইখানে কিছু মানুষের কথোপকথন হচ্ছিল, যেহেতু আমি সেই যায়গাতে ছিলাম, তাই কথায়, কান না দিতে চেয়েও, পারলাম না।।

লোকগুলোর কথোপকথন হচ্ছিল কাল হরতাল কিনা তা নিয়ে????????? কিন্তু কিভাবে কিভাবে যেন তাদের কথাটা ১৩ তারিখ এর চট্টগ্রামে ব্লগারদের সমাবেশে চলে গেল।। তারা বলে উঠল, হেফাজতে ইসলাম নাকি সেদিন(১৩ তারিখ) হরতাল ডেকেছে।। তারাও নাকি, সেদিন মাঠে নামবে ব্লগারদের বাধা দিতে, যাতে করে আমরা ব্লগারদের সমাবেশ পন্ড হয়ে যায়।।

এরপর তারা বলল যে নাস্তিক ব্লগাররা কোনভাবেই আমাদের এই ১২ আউলিয়ার পবিত্র স্থানে প্রবেশ করতে দিবে না...।। এবং তারা এই ও বলল যে সব ব্লগাররা নাকি নাস্তিক????? এই কথা শুনে আমি কি বলব , বুঝে উঠতে পারলাম না।।

তারপর আমিও তাদের কথার মাঝে, কথার বোমা ফাটালাম, এই বলে যে “আমিও একজন ব্লগার তাই বলে কি আপ্নারা আমাকেও নাস্তিক বলবেন>????????”

তারা আমার কথা শুনে আমারদিকে এমনভাবে তাকাল, যেন তারা একটি বিষাক্ত সাপ দেখছে।। এই কথা শোনার পর আমাকে এমন এমন কথা বলল যা এইখানে বলা আপত্তিকর বলে মনে করছি।। আমিও না ছাড়ার পাত্র না।। আমিও তাদের না বলে ছাড়লাম না।। বলা চলে ঐখানে বেশ ঝগড়া শুরু হয়ে যায়, এবং কিছু মানুষের জটলাও পেকে যায়।।

তারা শেষে একটি কথাই বলে উঠে যে ‘তোরা নাস্তিক ব্লগারদের শাস্তি আল্লাহ দেবে যেমনটা নাকি রাজীব ভাইকে দেয়া হয়েছে।।” এখন আমার প্রশ্ন আমরা ব্লগার বলে কেন আমাদের নাস্তিক বলা হবে????????

যারা নাস্তিকতাপুর্ন কথা লেখে তোমরা তাদের নাস্তিক বলতে পার, আমাদের কেন????

 ব্লগে যুদ্ধপরাধির ফাসি, জামাত শিবির নিষিদ্ধকরণ, শাহবাগ, প্রেসক্লাব, এবং জামাত শিবিরদের আমাদের এই সোনার বাংলা থেকে উথখেত করার জন্য উঠে পরে লেগেছি বলেই কি আমরা নাস্তিক????????????????????????

আমরা যদি নাস্তিক হই, তাহলে তোরা কি??

তোরা কি>> তার উত্তর আমিই দিয়ে দিলাম, তোরা হচ্ছে নরপিশাচ, এবং তোরা হচ্ছে এমন কিছু মানুষ যারা ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করস।।

যে মানুষরা ইসলামের নাম করে, আমাদের পবিত্র মসজিদের নামাজের গালিচা পোড়াতে পারে, তারা আর কিছু হলেও, মুসলিম নয়।।

আল্লাহ রব্বুল আলামিন অন্যান্য ধরমলম্বি মানুষদের সাথে ও ভাল ব্যাবহার করতে বলেছেন, যার দৃষ্টান্ত আমরা আমাদের মহানবি হযরত মুহাম্মদ (সঃ) এর জীবনাদর্শে দেখতে পায়।।

আর তোরা জামাত শিবির ওরফে ধর্ম ব্যাবসায়িরা কি করে////???

তারা হামলা চালায় হিন্দুদের মন্দিরে, বৌদ্ধদের প্যাগোডায়।। যায়গায় যায়গায় হামলা চালিয়ে ধংশ করে দেয় সঙ্খ্যালগু দের ঘর বাড়ি, তারা সংখ্যালঘুদের সাথে এই কাজটি করেছিল যাতে করে দেশের মধ্যে একটি অসম্প্রদায়িক দাঙ্গার সৃষ্টি হয়, এবং দেশে যাতে এক অপ্রীতিকর অবস্তা সৃষ্টি হয়, তাদের মূল লক্ষ্যই ছিল এটি।। তো এই কাজগুলোকে আমরা কি নাস্তিকতাপুর্ন কাজ কি আমরা বলতে পারি না?????????

ইসলাম শান্তির ধর্ম, আর তোরা এই ধর্মকে কি বানিয়ে ফেলতসস তা তোরাই ভাব????
তোদের মত নরপিশাচদের জন্নই এখন বাহিরের দেশে মুসলিম নাম দেখলে জঙ্গি মনে করে, সন্দেহের চোখে দেখে।। এর জন্য দায়ী তোরা নরপিশাচরাই।।

সারা দেশে যারায় জামাত শিবির ওরফে রাজাকারদের বিরুদ্ধে কথা বলছে, তাদেরকেই তারা থ্রেট দিচ্ছে, এবং বেশি লিখলে/তাদের বিরুদ্ধে কথা বললে তাদের মেরে ফেলছে।। আমাকেও এখন পর্যন্ত কম থ্রেট দেয়া হ্য় নাই, তারপরও আমি রাজাকারদের বিরুদ্ধে কথা বলব, এবং লিখে যাব, কখনই পিছপা হব না, ইনশাল্লাহ...

আমরা ব্লগার আমাদের শেষ রক্তবিন্দু পর্যন্ত আমরা সত্যর কথা এবং রাজাকার আর জামাত শিবিরদের নিষিদ্ধ করার দাবি করে লিখে যাবই।।

এরা যতই মিথ্যাচার করুক আমরা সত্য বলা, এবং জামাত শিবির নরপিশাচদের বিরুদ্ধে কথা লেখা বন্ধ  করব না।

আর ১৩ তারিখ চট্টগ্রামের সমাবেশ আমাদের সবার অংশগ্রহণে সফল হবে, এই কামনা করেই রাজকার ওরফে জামাত শিবিরদের বিরুদ্ধে স্লোগানের মাধ্যমেই আমি আমার বক্তব্য শেষ করলাম...........................।।

জামাত শিবির রাজাকার এই মুহুরতে বাংলা ছাড়।।
আমার সোনার বাংলায়, জামাত শিবিরের ঠাই নাই।।
রাজাকারের ফাশি চায়, ফাশি ছাড়া রেহাই নাই...

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, জয় শাহবাগ জয় তারুণ্য।। ...

0 comments:

Post a Comment