Tuesday, March 12, 2013

আজ থেকে অনেক অনেক অনেক দিন পর............ ভবিষ্যতের স্মৃতিচারণা ।। :)


বাংলাদেশ বনাম সাউথ আফ্রিকার টেস্ট ম্যাচ হইতেছে। বাংলাদেশ আগে ব্যাটিং করে ২ উইকেটে ৬৫০ রান করে ইনিংস ঘোষণা করছে। আমার নাতিরে আমি জিগাইলাম কে কতো রান করছেরে বাংলাদেশের?

নাতি বলল "দামিম ইকমাল করছে ২২৫, কাশরাফুল ১৮০, টুশফিকুর ২০০ নট আউট"।

আমি বললাম "বাহ, এক ম্যাচেই দুইজন ডাবল সেঞ্চুরি?"। আমার নাতি কিছুটা বিরক্ত হয়ে বলল "উফ দাদু এটা আবার কোন ঘটনা হল?

ইন্ডিয়ার সাথে গতমাসে টেস্ট সিরিজেও তো প্রথম ইনিংসে দুজন ডাবল সেঞ্চুরি করলো, কাশরাফুল তো টানা ৭ ম্যাচে ডাবল সেঞ্চুরি করার বিশ্বরেকর্ড করে ফেলছে, আজকে মাত্র ২০ রানের জন্য মিস করলো।"।

আমি মুচকি হেসে নাতির মাথায় হাত বুলিয়ে বললাম "আরে দাদু ভাই, এখন প্রত্যেক ম্যাচে ম্যাচে বাংলাদেশের দুএকজন করে ডাবল সেঞ্চুরি করতেছে অথচ বাংলাদেশ টেস্ট খেলা শুরু করার পর প্রথম ডাবল সেঞ্চুরী করতে সময় লেগেছিলো পাক্কা ১৩ বছর"।

নাতি কিছুটা অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলো "কি বলো? টানা ১৩ বছর ডাবল সেঞ্চুরিবিহীন ছিলো বাংলাদেশ?" আমি জবাব দিলাম "হ্যা দাদু, ২০০০ সালে টেস্ট ম্যাচ খেলা শুরু করে ২০১৩ তে এসে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলো তখনকার অধিনায়ক মুশফিক"।

নাতি জিজ্ঞেস করলো "মুশফিক মানে গত
বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার কোচ ছিলো যে?"

আমি উত্তর দিলাম "হ্যা ঐ মুশফিক"।

এবার নাতি আমাকে জিজ্ঞেস করলো "আচ্ছা দাদু ঐ খেলাটা কি দেখেছিলে তোমরা????

আমি এবার ফিরে গেলাম অতীতে। স্মৃতি হাতড়ে উত্তর দিলাম "হ্যা দাদু, সেদিন আমার একটা পরীক্ষা ছিলো।

আশরাফুল সকালে আউট হয়ে গেছিলো ১৯০ রানেই। তাই মুশফিক যখন ১৯০ এর ঘরে ঢোকে তখন আমাদের সে কি টেনশন। আমি আর পড়তে পারলাম না, টিভির সামনে যেয়ে বসলাম। মুশফিক একটা করে বল খেলে আমাদের বুকে একটা করে ঢাকের বাড়ি পড়ে।

মুশফিকের রান যখন ১৯৮ তখন হুট করে লাঞ্চ ব্রেক দিয়ে দিলো।

আর কি পড়াশুনা হয়, তুই বল?

পুরা ৪০ মিনিট অস্থির হয়ে থাকলাম। লাঞ্চ ব্রেক শেষ হলো, খেলা শুরু হল কিছুক্ষণের মধ্যেই মুশফিক ডাবল সেঞ্চুরি করে ফেললো।

আমাদের সে কি চিল্লানি। :)

সারাদেশে আনন্দের বন্যা বয়ে গেলো, স্ট্যাটাসে স্ট্যাটাসে ফেসবুক ভরে গেলো, সরকার থেকে পুরস্কার ঘোষণা করা হল, বিরোধীদল থেকে পটকা ফুটানো হল, পরদিন সারাদেশে সাধারন ছুটি ঘোষণা করলো বিরোধীদল, সব মিলিয়ে একেবারে হুলুস্থুল অবস্থা।"

নাতির দিকে তাকিয়ে দেখি সে মুগ্ধ হয়ে আমার কথা শুনছে। কণ্ঠে মুগ্ধতা ধরে রেখেই নাতি বলল "তুমি কতো ভাগ্যবান দাদু, বাংলাদেশের কোন প্লেয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির সাক্ষী তুমি"

আমি গর্বিত কণ্ঠে উত্তর দিলাম "হ্যা দাদু, আমি অনেক ভাগ্যবান, আমি বাংলাদেশের কোনো প্লেয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির সাক্ষী"।।

#‎একজন_নিষ্ঠাবান_দেশপ্রেমিক

0 comments:

Post a Comment